১৫:৪৭:৫৩

সিরিয়ায় অর্ন্তবর্ত্তী সরকার গঠন এবং নির্বাচনের প্রস্তাব

শুনুন /

যৌথভাবে জাতিসংঘ এবং আরব লীগের বিশেষ প্রতিনিধি, লাখদার ব্রাহিমি সিরিয়ায় একটি অর্ন্তবর্ত্তী সরকার গঠনের প্রস্তাব দিয়েছেন।

সপ্তাহান্তে মস্কোতে এক সফর শুরুর প্রাক্কালে সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে, লাখদার ব্রাহিমি বলেন যে প্রস্তাবিত অন্তবর্ত্তী সরকার পূর্ণ নির্বাহী ক্ষমতার অধিকারী হবে।

সিরিয়ায় সরকারী এবং বিরোধী যোদ্ধাদের মধ্যে লড়াই অব্যাহত থাকার পটভূমিতে মি ব্রাহিমি একথা বলেন।

মি ব্রাহিমি বলেন যে এই সরকার অর্ন্তবর্ত্তী সময়ের জন্য ক্ষমতা গ্রহণ করবে এবং নির্বাচনের মধ্য দিয়ে তার মেয়াদ শেষ হবে।

তিনি বলেন সমঝোতাসাপেক্ষে এই নির্বাচন হবে প্রেসিডেন্ট পদের জন্য, কেননা, বর্তমানে সেখানে প্রেসিডেন্টশাসিত সরকার ব্যবস্থা চালু রয়েছে। তবে, যদি সমঝোতা হয় যে সিরিয়ার শাসনব্যবস্থা সংসদীয় পদ্ধতির হবে তাহলে অনুষ্ঠিত হবে সংসদ নির্বাচন।

মি ব্রাহিমি তাঁর প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য সিরীয় সংঘাতের সব পক্ষগুলোর প্রতি আহ্বান জানান।

শ্রীলংকায় বন্যায় লাখ লাখ লোক ক্ষতিগ্রস্থ

আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা, আই ও এম জানিয়েছে যে ভারী বর্ষণ, ঝোড়ো বাতাস এবং ভূমিধ্বসের মধ্য দিয়ে শ্রীলংকার অবকাশ কাল অতিবাহিত হয়েছে।

সংস্থার অনুমান দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে কুড়িটি জেলায় প্রায় তিন লাখ পনেরো হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন – যাঁদের সংখ্যাগরিষ্ঠই হচ্ছেন পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশের বাট্টিকালো জেলায়।

আই ও এম বলছে যে সরকারের দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কেন্দ্রের হিসাব অনুযায়ী প্রায় তেরো হাজার বাড়ী হয় পুরোপুরি নাহয় অংশত ধ্বংস হয়ে গেছে।

সংস্থা বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে খাদ্য নয় এরকম সাহায্য পৌঁছে দিয়েছেন – যেগুলোর মধ্যে রয়েছে শত শত মশারি, তারপুলিন এবং শোয়ার তোষক।

সাহায্যের অনুরোধ চব্বিশ ঘন্টার মধ্যে বড়দিনে এসব সাহায্য বিতরণের কাজ শুরু হয়। তবে, বন্যায় অনেক রাস্তা ডুবে যাওয়ায় ত্রাণ বিতরণে সমস্যা দেখা দিয়েছে।

দূর্যোগ মোকাবেলায় মহাকাশ প্রযুক্তি ব্যবহারের কর্মপরিকল্পনা

এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকার দেশগুলো প্রাকৃতিক দূর্যোগ মোকাবেলা এবং টেকসই উন্নয়ন অর্জনের লক্ষ্যে মহাকাশ প্রযুক্তি কাজে লাগানোর জন্য একটি পঞ্চবার্ষিক আঞ্চলিক পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে।

জাতিসংঘের এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অর্থনৈতিক কমিশন , এসক্যাপের উদ্যোগে ব্যাংককে এসব দেশের প্রতিনিধিরা গত আঠারো থেকে বিশে ডিসেম্বর এক বৈঠকে মিলিত হয়ে এই পরিকল্পনা অনুমোদন করে।

এসক্যাপের প্রধান, ডঃ নোয়েলিন হেইযার মহাকাশ প্রযুক্তি এবং ভৌগোলিক তথ্য ব্যবস্থাপনা (জি আই এস) এর কিছু উপকারিতার দিক তুলে ধরেন।

ডঃ হেইযার বলেন যে কৃষকেরা যাতে আরো কার্য্যকর বীজবপন ও সেচের ব্যবস্থার মাধ্যমে তাদের আয় বাড়াতে সক্ষম হয় সেজন্যে মহাকাশ প্রযুক্তি এবং জি আই এসকে খরা পর্যবেক্ষণ এবং পূর্বাভাষের কাজে লাগানো যায়।

তিনি বলেন এসব প্রযুক্তির মাধ্যমে আবহাওয়ার পূর্বাভাষ এবং আগাম হুঁশিয়ারীর ব্যবস্থা জেলেদেরকে নিরাপদে সাগরযাত্রার পরিকল্পনার সুযোগ করে দেয়। প্রত্যন্ত গ্রামের স্কুলের বাচ্চারাও টেলিযোগাযোগ উপগ্রহের মাধ্যমে দূর-শিক্ষণের মাধ্যমে উপকৃত হচ্ছে।

মহাকাশ প্রযুক্তির ব্যবহার সম্পর্কিত এই কর্মপরিকল্পনায় এর বাস্তবায়নে অগ্রগতি পর্যালোচনার জন্য ২০১৫ সালে মন্ত্রীপর্য্যায়ের একটি সম্মেলন আয়োজনেরও আহ্বান জানানো হয়।

তিমুর-লেস্টে দেশগঠনে সক্ষম: আমিরা হক

জাতিসংঘের ডিপার্টমেন্ট অব ফিল্ড-সাপোর্ট এর প্রধান, আমিরা হক বলেছেন যে তিমুর-লেস্টের জনগণের নিজেদের দেশকে গড়ে তোলার ক্ষমতা রয়েছে।

৩১শে ডিসেম্বর তিমুর-লেস্টেতে জাতিসংঘের সমন্বিত মিশন, ইউএনএমআইটি'র ম্যান্ডেট শেষ হওয়ার প্রাক্কালে মিস হক জাতিসংঘ রেডিওতে একথা বলেন।

মিস হক ২০০৯ সাল থেকে চলতিবছরে তাঁর নতুন দায়িত্ব গ্রহণের আগে পর্য্যন্ত ইউএনএমআইটি'র প্রধান ছিলেন।

তিনি বলেন যে তিনি দেখেছেন যে দশ বছর আগে ইন্দোনেশিয়ার কাছ থেকে স্বাধীনতা পাওয়ার পর দেশটির জনগণ নিজেদের স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারা এবং স্বদেশে নিরাপদ বোধ করায় আনন্দিত।

মিস হক বলেন যে অন্য আরেকটি পর্য্যায়ে আমি দেখেছি যে বিভিন্ন বিভাগে লোকজন সেগুলো পরিচালনার ক্ষমতা অর্জন করেছেন, তরুণেরা প্রশিক্ষণ থেকে ফিরে সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে দায়িত্ব নিয়েছে।

মিস হক বলেন যে তিনি দেখেছেন যে ডাক্তাররা কাজে ফিরে গেছেন এবং জেলা এবং উপজেলা পর্য্যায়ে যাচ্ছেন। সুতরাং, এসব কিছুতেই আপনি ইঙ্গিত পাবেন যে যে দেশটি শক্ত ভিত্তির উপর দাঁড়িয়েছে এবং তারা নিজেদের এমনভাবে তৈরি করেছে যাতে তাদের সামর্থ্য সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়।

জাতিসংঘ বলছে যে ডিসেম্বরের শেষে শান্তিরক্ষীদের প্রত্যাহারের পরও তিমুর-লেস্টেতে তাদের ভূমিকা থাকবে।

শিশুকল্যাণকে প্রাধান্য দিতে রুশ সরকারের প্রতি ইউনিসেফের আহ্বান

রুশ এতিম শিশুদেরকে আমেরিকান নাগরিকদের দত্তক গ্রহণ নিষিদ্ধ করে রাশিয়ার পার্লামেন্টে যে আইন পাশ হয়েছে তার প্রতিক্রিয়ায় জাতিসংঘ শিশু উন্নয়ন তহবিল, ইউনিসেফ রুশ সরকারের প্রতি শিশুদের জন্য যেটা সবচেয়ে ভালো হবে তেমন ব্যবস্থা নেবার আহ্বান জানিয়েছে।

ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক, এন্থনি লেক শিশুদের কল্যাণমূলক ব্যবস্থাগুলোর উন্নয়নে রুশ প্রধানমন্ত্রী, দেমিত্রি মেদভেদেভের আহ্বানকে স্বাগত জানান।

অবশ্য, তিনি একইসাথে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে শিশুরা বর্তমানে যে দূর্ভোগের মধ্যে রয়েছে সেদিকে জরুরী দৃষ্টি দেবারও আহ্বান জানান।

মি লেক এর মতে শিশুদের এধরণের প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামোয় প্রতিপালনের চেয়ে দেশের ভেতরে এবং আন্ত:দেশীয় দত্তকী ব্যবস্থায় কোন পরিবারের মধ্যে বেড়ে ওঠার ব্যবস্থা করাটা অত্যাশ্যকীয় বিকল্প।

সাবেক যোদ্ধাদের মানসিকভাবেও নিরস্ত্র করা প্রয়োজন: জাতিসংঘ দূত

সংঘাতে যৌন সহিংসতা বিষয়ে জাতিসংঘের বিশেষ প্রতিনিধি, যায়নব বাঙ্গুরা বলেছেন যে নিরাপত্তাবাহিনীতে সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যে সাবেক যোদ্ধাদের শুধু নিরস্ত্র করাই যথেষ্ট নয়।

জুন মাসে বিশেষ দূত হিসাবে নিয়োগ পাওয়ার পর তিনি প্রথম যে দেশ সফর করেন সেটি হোল মধ্য আফ্রিকা প্রজাতন্ত্র, সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক এবং সেখান থেকে ফিরে মিস বাঙ্গুরা জাতিসংঘ তথ্য কেন্দ্রকে বলেন যে সংঘাত থেকে উত্তরণ ঘটেছে যেসব দেশের তাদের চ্যালেঞ্জগুলোর মধ্যে রয়েছে নিরস্ত্রীকরণে যৌন সহিংসতার বিষয়টিকে প্রাধান্য দেওয়া এবং সাবেক যোদ্ধাদের দল ভেঙ্গে দিয়ে মূলধারায় তাদের আত্মীকরণ।

মিস বাঙ্গুরা বলেন যে যোদ্ধাদেরকে শুধু দৈহিক নিরস্ত্রীকরণ করলে চলবে না। তাদেরকে মানসিকভাবেও নিরস্ত্র করতে হবে। কেননা, অভিজ্ঞতায় দেখা গেছে যুদ্ধের পর গোষ্ঠীপর্য্যায়ে ধর্ষণের ঘটনা বেড়ে যায়।

মিস বাঙ্গুরা বলেন যে এর কারণ হচ্ছে এই যে সাবেক যোদ্ধাদের কাছ থেকে শুধু অস্ত্রটি ফিরিয়ে নিয়ে আপনি যখন নিরস্ত্র করছেন এবং তাদেরকে সমাজে পুনরায় ফিরিয়ে নিচ্ছেন বা নিরাপত্তাবাহিনীতে পুর্নবাসন করছেন তখন তারা নারীদের ওপর সহিংসতার পুরোনো সংস্কৃতিতে ফিরে যায়। সুতরাং, তখন সামরিকবাহিনীর মধ্যেও তাদেরকে কীভাবে নিয়ন্ত্রণ করা যায় সেই সমস্যা দেখা দেয়।

মিস বাঙ্গুরা যৌন সহিংসতার শিকার নারীদের ক্ষমতায়নের ওপরও জোর দেন।

Loading the player ...

সংযোগ বজায় রাখুন