১৬:২১:০৬

পুষ্টিকর খাদ্যের সমস্যায় রোহিঙ্গা শরণার্থীরা

শুনুন /

বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি, ওর্য়াল্ড ফুড প্রোগ্রাম, ডাব্লু এফ পি'র এক নতুন গবেষণায় দেখা যাচ্ছে বাংলাদেশে  কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরের নব্বুই শতাংশ আশ্রয়প্রার্থী জরুরি খাদ্য সহায়তা পেয়েছেন। তবে, পুষ্টি ভারসাম্যর্পূণ এবং বৈচিত্রময় খাবার পাওয়ার সুযোগের সীমাবদ্ধতা একটি বড় উদ্বেগের বিষয় হয়ে রয়েছে।

জরুরি অবস্থায় থাকা রোহিঙ্গাদের ঝুঁকি মূল্যায়ন , আরইভিএ কার্য্যক্রমটি পরিচালিত হয় গতবছরের নভেম্বর ও ডিসেম্বরে এবং ডাব্লু এফ পি ও খাদ্য নিরাপত্তা বিষয়ক অংশীদার প্রতিষ্ঠানগুলো যৌথভাবে এই সমীক্ষা পরিচালনা করে।

কক্সবাজারে নতুন আসা শরণার্থীদের জন্য ডাব্লু এফ পি তার ই-ভাউচার কার্য্যক্রমের পরিধি বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে।

বর্তমানে ডাব্লু এফ পি প্রায় নব্বুই হাজার শরণার্থীকে ই-ভাউচার কার্য্যক্রমে তালিকাভুক্ত করেছে, যার আওতায় তাদেরকে একটি কার্ড দেওয়া হয় যাতে আগে থেকেই টাকা দেওয়া থাকে এবং সেই কার্ড ব্যবহার করে তাঁরা নির্ধারিত দোকান থেকে উনিশ ধরণের খাদ্যসামগ্রী কিনতে পারেন। এই খাদ্যসামগ্রীর মধ্যে আছে চাল, ডাল, তাজা সবজি, মরিচ, ডিম এবং শুকানো বা শুঁটকি মাছ।

বিপরীতে নবাগতদের মধ্যে ডাব্লু এফ পি যে জরুরি খাদ্য সহায়তা দিচ্ছে তাতে থাকছে চাল, উদ্ভিজ্য তেল এবং ডাল। এই জরুরি খাদ্য সাহায্যে ন্যূনতম ক্যালোরির ব্যবস্থা হলেও তাতে খাদ্যে কোনো বৈচিত্র বা বহুমুখিনতা নেই।

সমীক্ষা প্রতিবেদনে স্থানীয় জনগোষ্ঠীর মধ্যে এসব শরণার্থী – বিশেষভাবে নারীদের জন্য জীবিকার সংস্থান করার উদ্যোগ জোরদার করার আহ্বান জানানো হয়েছে।

জাতিসংঘ শান্তিরক্ষায় প্রাণহানি বেড়েছে

২০১৭ সালে জাতিসংঘের ৬০ জন শান্তিরক্ষী নিহত হয়েছেন যা তার আগের দুবছরের প্রাণহানির দ্বিগুণ।

জাতিসংঘের একজন জেষ্ঠ্য কর্মকর্তা অতুল খারে এই তথ্য জানিয়ে বলেন যে গেল বছরে শান্তিরক্ষা কাজে নিয়োজিত মোট ১২৩ জনের প্রাণহানি ঘটেছে।

জাতিসংঘের ফিল্ড সার্পোট বিষয়ক সহকারী মহাসচিব মি খারে মাঠপর্যায়ে নিরাপত্তা পরিস্থিতি জোরদারের জন্য যেসব পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে তার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন।

২০১৮তে ঐক্যের জন্য মহাসচিব গুতেরেসের সর্বে্বাচ্চ সতর্কবার্তা

জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেস নববর্ষের শুভেচ্ছা বার্তায় সবার অভিন্ন মূল্যবোধকে রক্ষা এবং অভাবিত চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবেলায় বিশ্ব সম্প্রদায়ের মধ্যে ঐকমত্যের আহ্বান জানিয়েছেন।

মহাসচিব বলেন যে ২০১৭ সালকে তিনি শান্তির বছরে পরিণত করার আহ্বান জানালেও দূর্ভাগ্যজনকভাবে বিশ্ব মৌলিকভাবে উল্টোপথে পিছিয়েছে।

মি গুতেরেস বলেন যে ২০১৮ সালে নববর্ষের দিনে আমি কোনো আবেদন জানাচ্ছি না। আমি আমাদের বিশ্বের জন্য একটি সতর্কবার্তা – সর্ব্বোচ্চ সতর্কবার্তা জানাচ্ছি। সংঘাতগুলো আরও গভীর হয়েছে। নতুন বিপদ দেখা দিয়েছে। স্নায়ুযুদ্ধের পর বিশ্বে পরমাণু অস্ত্রের বিষয়ে উদ্বেগ এখন সবচেয়ে বেশি। জলবায়ু পরিবর্তনের গতি এখন সবচেয়ে দ্রুততায় ঘটছে। বৈষম্য বাড়ছে। আমরা ভয়ংকরভাবে মানবাধিকার লংঘনের ঘটনা বাড়তে দেখছি। জাতীয়তাবাদ এবং বিদেশিভীতি বৃদ্ধি পাচ্ছে। ২০১৮ সালে আমি ঐক্যের আহ্বান জানাচ্ছি।

তিনি বলেন ঐক্যের ওপরই আমাদের ভবিষ্যত নির্ভর করছে। তিনি বিশ্ব জুড়ে নেতাদের প্রতি দূরত্ব কমানোর , বিভাজন দূর করার আহ্বান জানান। তিনি ঐক্যের ওপর জোর দিয়ে বলেন যে তাঁর দৃঢ়বিশ্বাস রয়েছে যে বিশ্বকে আরও নিরাপদ ও সুরক্ষিত করা, সংঘাত নিরসন এবং ঘৃণা দূর করা সম্ভব।

অভিন্ন লক্ষ্যকে ঘিরে জনগণকে সংগঠিত করার মাধ্যমে আস্থা অর্জনের ওপরও মহাসচিব গুরুত্ব আরোপ করেন।

২০৩০ সালে বিশ্বে পর্য্যটকের সংখ্যা দাঁড়াবে ১৮০ কোটি

জাতিসংঘের বিশ্ব পর্য্যটন সংস্থা, ওর্য়াল্ড ট্যুরিজম অর্গানাইজেশন , ইউএনডাব্লুটিও বলছে যে ২০৩০ সাল নাগাদ বিশ্বে পর্যটকের সংখ্যা দাঁড়াবে প্রায় একশো আশি কোটি, অর্থাৎ প্রতি পাঁচজনে একজন বিশ্ব জুড়ে ভ্রমণরত থাকবেন।

ইউএনডাব্লুটিও'র মহাসচিব তালেব রিফাই জাতিসংঘের সংবাদ বিভাগকে বৈশ্বিক উন্নয়ন এবং বিশ্বকে একটি উন্নত জায়গায় রুপান্তরে পর্যটনের ভূমিকার ওপর আলোকপাত করেন।

তিনি বলেন একইসময়ে বিশ্বায়ন প্রক্রিয়া কিছু গুরুতর চ্যালেঞ্জও তৈরি করেছে , যার মধ্যে আছে দূষণ, বর্জ্য, শ্রমশোষণ, পতিতাবৃত্তি, শিশু নির্যাতন এবং প্রাকৃতিক সম্পদের লুণ্ঠন।

এল নিনো ও লা নিনা মোকাবেলায় আগাম প্রস্তুতির আহ্বান

জাতিসংঘের একজন ত্রাণ কর্মকর্তা বলেছেন যে ২০১৮ সালে লা নিনা বিশ্ব জুড়ে আবহাওয়ার ওপর প্রভাব ফেলবে বলে আশংকা করা হচ্ছে।

তিনি সরকারগুলোর প্রতি এই আবহাওয়াগত প্রবণতা  লা নিনা এবং এল নিনোর সম্ভাব্য ধ্বংসাত্মক প্রভাব মোকাবেলায় আগাম ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

গ্রীষ্মমন্ডলের মধ্য ও র্পূবাঞ্চলীয় প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকায়  প্রতি তিন থেকে সাত বছরে উষ্ণায়নের যে আবহাওয়াগত প্রবণতা দেখা যায় তা বুঝাতেই এল নিনো অভিধাটি ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

Loading the player ...

সংযোগ বজায় রাখুন