১৪:১১:২৯

দারিদ্র দূরীকরণে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তার ভূমিকাই প্রধান, আইটিসি

শুনুন /

খুব ছোট বা মাইক্রো, ক্ষুদ্র বা স্মল এবং মধ্যম বা মিডিয়াম আকারের উদ্যোক্তা বা এমএসএমই  দিবস উপলক্ষ্যে জাতিসংঘের একজন ব্যবসাবিশেষজ্ঞ বলেছেন যে আমাদের গ্রহের ভবিষ্যত কল্যাণ এবং দারিদ্র মোকাবেলায় উদ্যোক্তারাই সবচেয়ে গুরুত্বর্পূণ।

আন্তর্জাতিক বাণিজ্য কেন্দ্র, ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড সেন্টার (আইটিসি)'র নির্বাহী পরিচালক, আরাঞ্চা গঞ্জালেজ বলেন বিশ্ব জুড়েই অধিকাংশ অর্থনীতির মেরুদন্ড হচ্ছে ক্ষুদ্র ব্যবসা। কিন্তু, তারাই সবচেয়ে বেশি প্রতিকুলতার মুখোমুখি হয়।

আরাঞ্চা গঞ্জালেজ বলেন যে আজ তাদের ঋণ পাওয়ার সুবিধা নেই, তাদেরকেই অনেক বেশি আমলাতান্ত্রিকতার ধাক্কা সামলাতে হয়। আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে অংশ নেওয়ার জন্য তাঁরা যথেষ্ট প্রতিদ্বন্দিতা করার সামর্থ্য রাখেন না। তাঁদের ব্যবসার প্রবৃদ্ধির হার কম এবং তাঁরা যেসব কর্মসংস্থান করেন সেগুলোও খুব মানসম্পন্ন নয়।

আন্তর্জাতিক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী পরিষদ, ইন্টারন্যাশনাল কাউন্সিল ফর স্মল বিজনেস এর সরবরাহ করা পরিসংখ্যানে দেখা যায় বিশ্বের পঞ্চাশ শতাংশ দেশেই জাতীয় কর্মসংস্থানের সত্তুর শতাংশ ঘটে খুব ছোট, ক্ষুদ্র এবং মাঝারী আকারের প্রতিষ্ঠানে।

টেকসই উন্নয়নে এসব প্রতিষ্ঠানের অবদান সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ানোর লক্ষ্যে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের উদ্যোগে এবছর এমএসএমই দিবস উদযাপিত হয়।

সন্ত্রাসবাদের হুমকির অজুহাতে সুবিধা গ্রহণের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি

সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বাধা তৈরি হলে মানুষের স্বাধীনতা উল্টে দিতে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মের আহ্বানকে খুবই দু:খজনক বলে অভিহিত করেছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার যেইদ রাদ আল হুসেইন।

লন্ডনে ল সোসাইটির এক অনুষ্ঠানে যেইদ বলেন মিসেস মের মন্তব্য বিশ্বব্যাপী সহিংস উগ্রবাদ দমনের নামে যাঁরা মানবাধিকার লংঘন করেন সেইসব কর্তৃত্ত্ববাদী শাসকের জন্য একটি উপহার।

তিনি বলেন যে সন্ত্রাসবাদের স্বেচ্ছাচারমূলক প্রকৃতির বিরুদ্ধে আর্ন্তজাতিক আইনের প্রয়োগই হচ্ছে একমাত্র কার্য্যকর প্রতিষেধক।

জাতিসংঘের মানবাধিকার প্রধান বলেন শ্রীলংকায় যুদ্ধাপরাধের বিচারের বিষয়ে দাবি জানানো হলে সেদেশের একজন সাবেক অধিকর্তা যুক্তরাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টান্ত দিয়েছিলেন।

হাইকমিশনার বলেন ইরাকে আইএসআইএল এর হয়ে যেসব শিশুযোদ্ধা লড়াই করছে তাদেরকে হত্যার জন্য যাঁরা প্রকাশ্যে আহ্বান জানাচ্ছেন তাঁরা ভুলে যাচ্ছেন যে একজন অপরাধীরও কিছু অধিকার আছে।

অভিবাসী শ্রমিকদের জীবনমান উন্নয়নে নজর দেওয়ার আহ্বান 

অভিবাসী শ্রমিকদের জীবন এবং কর্মপরিবেশ উন্নয়নের নতুন উপায় উদ্ভাবনের জন্য সবদেশের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন আর্ন্তজাতিক শ্রম সংস্থা, ইন্টারন্যাশনাল লেবার অর্গানাইজেশন, আইএলও'র  প্রধান গাই রাইডার।

বুধবার বার্লিনে অভিবাসন এবং উন্নয়ন বিষয়ক বৈশ্বিক ফোরামে বক্তৃতায় তিনি এই আহ্বান জানান।

গাই রাইডার বলেন কর্মক্ষম অভিবাসীদের প্রায় পঁচাত্তর শতাংশ বা পনেরো কোটি লোক এখন শ্রমশক্তিতে যুক্ত হয়েছেন এবং শোভনীয় কাজের সন্ধান করছেন।

অভিবাসীদের জীবনযাত্রায় বাস্তবসম্মত পরিবর্তনের জন্য পদক্ষেপ গ্রহণের ওপর তিনি বিশেষভাবে জোর দেন।

তিনি সম্মেলনের উদ্দেশ্যে বলেন আমরা যদি এই অভিবাসন প্রক্রিয়া থেকে উপকৃত হতে চাই তাহলে সেজন্যে আমাদের নীতি বাছাই করার বিষয়টিতে খুবই গুরুত্ব দিতে হবে।

নারী অধিকারের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ উদ্বেগজনক হয়ে উঠছে

জাতিসংঘের একদল স্বাধীন বিশেষজ্ঞ হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন যে বিশ্বের নানাপ্রান্তে নারী অধিকারের বিরুদ্ধে নেতিবাচক প্রতিরোধ গড়ে উঠছে এবং তা জোরদার হচ্ছে।

এসব বিশেষজ্ঞরা এক বিবৃতিতে বলছেন যে নারী-পুরুষের সমতার ধারণাটিকেই এখন কিছু মহল বিতর্কিত করছেন।

আইন এবং অনুশীলনে নারীর বিরুদ্ধে বৈষম্য বিষয়ক কর্মগোষ্ঠীর সভাপতি আলদা ফাসিও ভীতিকরভাবে নারী অধিকার প্রতিরোধের বিরুদ্ধে চোখ খুলে নারীসমাজকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান।

নারী অধিকার বিষয়ক এই কর্মগোষ্ঠীর বিবৃতিতে ধর্মীয়, সাংস্কৃতিক কিম্বা ঐতিহ্যের দোহাই দিয়ে নারীর প্রতি বৈষম্যমূলক যেসব আইন টিকিয়ে রাখা হয়েছে সেগুলো বাতিলের জন্য সবদেশের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

আল জাজিরার ওপর  নজিরবিহীন আক্রমণের অগ্রহণযোগ্য: যেইদ

জাতিসংঘের মানবাধিকার প্রধান আল জাজিরা নেটওর্য়াক এবং তার সহযোগী গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ করার জন্য কাতারের প্রতি প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলোর দাবিকে অস্বাভাবিক, নজিরবিহীন এবং স্পষ্টতই অযৌক্তিক অভিহিত করে বিষয়টিতে জোর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

হাইকমিশনার যেইদ রাদ আল হুসেইনের একজন মুখপাত্র জেনেভায় সাংবাদিকদের বলেন আপনি দেখুন কিম্বা না দেখুন, পছন্দ করুন, বা নাই করুন, তার সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে একমত হোন বা না হোন, আল জাজিরার ইংরেজি ও আরবী টিভি চ্যানেলগুলো বৈধ প্রতিষ্ঠান এবং তারা কোটি কোটি দর্শকের সেবা করছে।

মুখপাত্র রুর্পাট কোলভিল এসব প্রতিষ্ঠানকে অবিলম্বে বন্ধ করে দেওয়ার দাবি আমাদের বিবেচনায় মতপ্রকাশের স্বাধীনতার ওপর একটি নজিরবিহীন হামলা।

Loading the player ...

সংযোগ বজায় রাখুন