১১:৫১:৪৬

জলবায়ু পরিবর্তন-সম্পর্কিত মৃত্যুর শিকার বেশি হচ্ছে শিশুরা

শুনুন /

বিশ্বে জলবায়ু পরিবর্তনের সাথে সম্পর্কিত বিভিন্ন কারণে যেসব মৃত্যু ঘটছে তার নব্বুই শতাংশই ঘটছে উন্নয়নশীল দেশে এবং এসব মৃত্যুর আশি শতাংশই শিশু বলে বলছেন জাতিসংঘ শিশু তহবিল, ইউনিসেফ এর নির্বাহী পরিচালক, অ্যান্থনি লেক।

জলবায়ু পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জসমূহ: সম্মুখসারিতে শিশু বা দ্য চ্যালেঞ্জেস অব ক্লাইমেট চেঞ্জ: চিল্ড্রেন অন দ্য ফ্রন্ট লাইন র্শীষক ইউনিসেফ এর এক নতুন প্রকাশনার মুখবন্ধে মি লেক একথা বলেন।

তিনি বলেন যে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব যতোই চরম রুপ লাভ করছে এবং দৃশ্যমান হচ্ছে ততোই তার বিরুপ প্রভাবে  বিশ্বের শিশু এবং কিশোরদের জীবন ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ঝুঁকি বাড়ছে।

ইউনিসেফ এর গবেষণা দপ্তর, ইনোসেন্টির এই প্রকাশনায় বলা হয় যে ক্ষতিকর গ্যাস উদগীরণের মাত্রা বৃদ্ধির প্রমাণ যতোই দৃশ্যমান হচ্ছে  জলবায়ু পরিবর্তনের সবচেয়ে বেশি ক্ষতির ঝুঁকিতে থাকা শিশুরা এবিষয়ের আলোচনায় ততোই উপেক্ষিত থাকছে। এই পটভূমিতেই জলবাযূ পরিবর্তনের বিষয়ে র্শীষস্থানীয় চল্লিশজন বিশেষজ্ঞ শিশুদের ঝুঁকিগুলোর  বিভিন্ন দিক এই প্রকাশনায় বিশ্লেষণ করেছেন ।

প্রাকৃতিক দূর্যোগ এবং কীটপতঙ্গবাহিত জীবাণূর মাধ্যমে রোগ সংক্রমণ, খাদ্য নিরাপত্তাহীনতা এবং নিরাপদ পানি ও পয়:ব্যবস্থার অভাবে উন্নয়নশীল দেশগুলোতে জলবায়ু পরিবর্তন-সম্পর্কিত যেসব শিশুমৃত্যু ঘটছে তার বিস্তারিত এসব বিশেষজ্ঞরা তাঁদের নিবন্ধে তুলে ধরেছেন। তাঁদের অনুমান আগামী দশকে শুধু দক্ষিণ এশিয়া এবং আফ্রিকায় জলবায়ুর পরিবর্তন-সম্পর্কিত দূর্যোগে সাড়ে সতেরো কোটি শিশু ক্ষতিগ্রস্ত হবে এবং এর ফলে বছরে অতিরিক্ত প্রায় আড়াই লাখ শিশুর মৃত্যু ঘটতে পারে।

এই রিপোর্টে শিশু এবং তরুণদেরকে জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়ে তথ্যসমৃদ্ধ বিতর্কে অংশগ্রহণের সুযোগ করে দেওয়ার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরা হয়। এতে বলা হয় যে বর্তমান প্রজন্ম জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সৃষ্ট কিছু অধিকারহরণকারী বাধ্যবাধকতা ভবিষ্যত প্রজন্মের কোন মতামত ছাড়াই তাদের ওপর আরোপ করতে যাচ্ছে যা প্রজন্মান্তরের অবিচার হিসাবে গণ্য হতে পারে।

এই প্রতিবেদনে বিশ্ব আগামী বছরে দারিদ্রের অবসান ঘটানো, জলবায়ু পরিবর্তনের ধারাকে ঠেকানো এবং শিশু অধিকার প্রসারের উচ্চাকাঙ্খী লক্ষ্যসমূহ নির্ধারণ করতে যাচ্ছে উল্লেখ করে বলা হয় যে ২০১৫ সাল এক্ষেত্রে একটি সুযোগ এনে দিয়েছে।

Loading the player ...

সংযোগ বজায় রাখুন