৮:৫৫:০৫

সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিকে জাতিগত নিধনযজ্ঞ চলছে

শুনুন /

জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থা, ইউ এন এইচ সি আর বলছে যে সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক ( সি এ আর) এর উত্তর এবং পশ্চিমাঞ্চলে ব্রিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলো দায়মুক্তির সাথে জাতিগত নিধনযজ্ঞ পরিচালনা করায় সেখানকার বেসামরিক লোকজন চরম সহিংসতার মুখোমুখি হয়েছেন।

সংস্থা বলছে প্রধানত: খৃষ্টানসমর্থিত বলাকাবিরোধী বিদ্রোহী গোষ্ঠীর পরিচালিত সহিংসতা থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য হাজার হাজার মুসলমান নাগরিক দেশটি থেকে পালিয়ে যাচ্ছেন।

ইউ এন এইচ সি আর বলছে যে দেশটিতে আফ্রিকান ইউনিয়ন এবং আন্তর্জাতিক যেসব শান্তিরক্ষী রয়েছেন তাদের সংখ্যা এতো অল্প যে সেখানকার বেসামরিক জনগোষ্ঠীকে নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য তা যথেষ্ট নয়।

ইউ এন এইচ সি আর এর বেসামরিক সুরক্ষা বিষয়ক বিশেষজ্ঞ ফিলিপ লেকর্লাক বলছেন যে সিএআরে যে সহিংসতা দেখা যাচ্ছে তা ১৯৯৫ সালে বসনিয়া র্হাৎজেগোভিনার সেব্রেনিৎসায় মুসলমান জনগোষ্ঠীর ওপর পরিচালিত সহিংসতার সাথে তুলনীয়।

সি এ আরে গত দুমাস ধরে অবস্থানরত মি লেকর্লাক বলছেন যে দেশটিতে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে মধ্যস্ততা এবং সমঝোতা এখনও সম্ভব, তবে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় নতুন সরকারের প্রয়োজন আন্তর্জাতিক সহযোগিতা।

মি লেকর্লাক বলেন যে দেশটিতে মুসলমানদের লক্ষ্য করে পশ্চিম এবং উত্তরাঞ্চলে ধর্মীয় জাতিগত নির্মূলকরণের প্রক্রিয়া চলছে। মানুষ জীবন বাঁচানোর চেষ্টায় সেখানে যে আটকা পড়ে গেছেন সেটা খুবই পরিষ্কার।

মি লেকর্লাক বলেন যে আন্তর্জাতিক বাহিনীর উপস্থিতি এবং মধ্যস্ততার আরও চেষ্টা এধরণের সহিংসতা ঠেকাতে পারে।

মি লেকর্লাক বলেন যে লোকজন যে সেখান থেকে সরে যাওয়ার চেষ্টা করছে না তা নয়, কিন্তু নিরাপদ পথ পাওয়াটাই কঠিন হয়ে পড়েছে।রাষ্ট্র তার ক্ষমতা প্রয়োগের চেষ্টা যতোই বাড়াক না কেন, সীমিতসংখ্যক পুলিশ এবং বিচারক দিয়ে তা পারা খুবই কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে।

মি লেকর্লাক বলেন যে আন্তর্জাতিক বাহিনীগুলো , তা সে ফরাসী সৈন্যই হোক অথবা আফ্রিকান ইউনিয়নের ছ'হাজার শান্তিরক্ষীই হোক, বেসামরিক জনগোষ্ঠীর সুরক্ষায় তা যথেষ্ট নয়।

সি এ আরে আফ্রিকান ইউনিয়ন ছয় হাজার শান্তিরক্ষী এবং ফরাসী সরকার ষোলশ' সৈন্য মোতায়েন করেছে।

Loading the player ...

সংযোগ বজায় রাখুন