১৭:০১:৩২

বিশ্বের ৩০ শতাংশ অভিবাসীই তরুণ : জাতিসংঘ

শুনুন /

জাতিসংঘের এক নতুন রির্পোটে বলা হয়েছে যে তরুণদের অভিবাসন তাঁদের নিজেদের এবং পরিবারের আর্থিক অবস্থার উন্নয়ন ঘটালেও তাদের উৎসদেশগুলোতে মেধার অপচয় ঘটছে, বিশেষ করে স্বাস্থ্য এবং শিক্ষকতা পেশার ক্ষেত্রে তার নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে।

২০১৩'র বিশ্ব যুব প্রতিবেদনে তরুণদের অভিবাসনের সমস্যা, উদ্বেগ এবং সাফল্যের বিষয়গুলো তুলে ধরা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয় যে অতীতের বছরগুলোতে আন্তর্জাতিক অভিবাসন ক্রমশ বৃদ্ধি পেয়ে বিশ্বে বর্তমানে প্রায় তেইশ কোটিতে দাঁড়িয়েছে।এসব অভিবাসীদের ত্রিশ শতাংশেরই বয়স উনত্রিশ বছরের কম।

প্রতিবেদনে বলা হয় যে চাকরি এবং শিক্ষার মতো ব্যাক্তিগত এবং অর্থনৈতিক পরিস্থিতি ছাড়াও কখনো কখনো উৎসদেশের রাজনৈতিক অবস্থার কারণেও তরুণরা অভিবাসী হন।

সংখ্যায় অল্প হলেও উল্লেখযোগ্য সংখ্যক তরুণ প্রকিৃতিক বা মানবসৃষ্ট বিপর্য্যয়ের কারণে অভিবাসী হন বলেও রির্পোটে উল্লেখ করা হয়।

এতে বলা হয় যে ২০১৩ সালে বিশ্বে দেড় কোটি অভিবাসী ছিলেন শরণার্থী এবং তরুণ অভিবাসীদের ওপর এটিরও কিছু প্রভাব রয়েছে।

সিরীয় শান্তি আলোচনা অনির্দ্দিষ্টকালের জন্য মুলতবি

সিরীয় শান্তি আলোচনার দ্বিতীয় দফা কোন অগ্রগতি ছাড়াই শেষ হয়েছে। সিরিয়া বিষয়ে জাতিসংঘ এবং আরব লীগের বিশেষ দূত লাখদার ব্রাহিমী সংলাপ শুরুর বিষয়ে সরকার এবং বিরোধীপক্ষ একটি অভিন্ন অবস্থানে আসতে না পারায় হতাশা প্রকাশ করেছেন।

শনিবার জেনেভায় তাঁর বক্তব্যে মি ব্রাহিমী শান্তি আলোচনায় অগ্রগতি না হওয়ায় সিরীয় জনগণের কিাছে ক্ষমা চেয়ে শান্তিপ্রক্রিয়া শুরু হোক বা না হোক সরকার এবং বিরোধীপক্ষকে বিষয়টি গভীরভাবে পর্য্যালোচনার আহ্বান জানিয়েছেন।

শান্তি আলোচনার তৃতীয় দফা শুরুর কোন তারিখ ঠিক হয় নি।

ইন্টারনেট ব্যবহারে তুরস্কের নিয়ন্ত্রণ মানবাধিকারের পরিপন্থী

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনারের দপ্তর হুঁশিয়ারী দিয়ে বলেছে যে তুরস্কে ইন্টারনেট ব্যবহারের ওপর নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার নতুন আইন মানবাধিকার, বিশেষ করে ব্যাক্তিগত গোপনীয়তা এবং মতপ্রকাশ ও বাকস্বাধীনতাকে লংঘন করতে পারে।

এই আইনে আদালতের আদেশ ছাড়াই টেলিযোগাযোগ কতৃপক্ষ যেকোন ওয়েবসাইট বন্ধ করে দিতে পারে। জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনারের মুখপাত্র, রুর্পাট কোলভিল বলছেন যে আন্তর্জাতিক মানবাধিকারের বিষয়ে তুরস্কের যে দায়িত্ব রয়েছে এই আইন তার পরিপন্থী।

মি কোলভিল বলেন যে ৬৫১৮ নস্বর আইনটিতে ইন্টারনেট পরিসেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে ওয়েবব্যবহারকারীদের তথ্য দু'বছর পর্য্যন্ত সংরক্ষণ এবং কতৃপক্ষ চাইলেই বিচারবিভাগীয় অনুমোদন ছাড়াই সেগুলো তাদের কাছে তারা হস্তান্তর করতে বাধ্য।এছাড়াও ইন্টারনেট পরিসেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বেআইনী হিসাবে প্রতীয়মান কোন কিছু ( কনটেন্ট) ওয়েবসাইট থেকে সরাতে র্ব্যথ হলে তাঁদেরকে বিপুল পরিমাণে জরিমানার সম্মুখীন হতে হবে।

মি কোলভিল বলেন যে এই সংশোধনী জারির আগেই ২০০৭ সালের মে মাসে ৫৬৫১ নম্বর আইনের মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহারের ওপর ব্যাপকভিত্তিক নিয়ন্ত্রণ আরোপিত হয়েছে।

মি কোলভিল জানান যে আইনটি কার্য্যকর হওয়ার পর থেকে প্রায় সাঁইত্রিশ হাজার ওয়েবসাইটে যাওয়ার পথ বন্ধ রাখা হয়েছে।

সুদানের শান্তি আলোচনাকে স্বাগত জানালো নিরাপত্তা পরিষদ

ইথিওপিয়ার আদ্দিস আবাবায় সুদান সরকার এবং সুদানের পিপলস লিবারেশন মুভমেন্ট ( এস পি এল এম-এন) এর মধ্যে আলোচনা শুরু হওয়ায় তাকে স্বাগত জানিয়েছে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ। আফ্রিকান ইউনিয়ন হাই-লেভেল ইমপ্লিমেন্টেশন প্যানেল (এ ইউ এইচ আই পি)এর মধ্যস্থতায় এই আলোচনা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

তিনজন সাবেক প্রেসিডেন্ট দক্ষিণ আফ্রিকার থাবো এমবেকি, নাইজেরিয়ার আব্দুলসালামি আলহাজি আবুবাকার এবং বুরুন্ডির পিয়ের বুইওয়ার সমন্বয়ে ২০০৯ সালে এই প্যানেল প্রতিষ্ঠা করা হয়। সুদানের দক্ষিণ করদোফান এবং ব্লূ নাইল রাজ্য দুটির সংঘাত শন্তির্পূণভাবে অবসানের লক্ষ্যে এই সংলাপ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।    

নিরাপত্তা পরিষদ একইসাথে সুদান এবং দক্ষিণ সুদানের মধ্যে বিরোধর্পূণ তেলসমৃদ্ধ আবেই অঞ্চলকেন্দ্রিক উত্তেজনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে ঐ অঞ্চল থেকে অবিলম্বে তাদের নিজ নিজ সৈন্যদের সরিয়ে নেওয়ার জন্য উভয় দেশের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

ক্রমবর্ধমান অসমতা উন্নয়নকে বিপথগামী করবে: জাতিসংঘ

জাতিসংঘের এক নতুন প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে স্বাস্থ্য এবং আয়ুবৃদ্ধির ক্ষেত্রে গত কুড়ি বছরে যেসব গুরুত্বর্পূণ অগ্রগতি অর্জিত হয়েছে তা ক্রমবর্ধমান অসমতার কারণে নস্যাৎ হয়ে যেতে পারে।

জাতিসংঘের ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স অন পুপলেশন এন্ড ডেভলেপমেন্ট (আইসিপিডি) বিয়োন্ড টুয়েন্টি ফোরটিন গ্লোবাল রির্পোটে যুক্তি দেওয়া হয় যে ঐসব অগ্রগতি টিকিয়ে রাখতে হলে দরিদ্রতম এবং প্রান্তিক জনগোষ্ঠীগুলোর সুরক্ষায় সরকারগুলোর আইন প্রণয়ন এবং সেগুলো বাস্তবায়ন করা প্রয়োজন।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি পণ্যের বাণিজ্যে এশিয়া শীর্ষে : আঙ্কটাড

জাতিসংঘের বাণিজ্য বিষয়ক সংস্থা, আঙ্কটাড এর প্রকাশিত সর্বসাম্প্রতিক পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির বিশ্বব্যাপী আমদানী কুড়ি হাজার শত কোটি ডলার ছাড়িয়ে গেছে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি পণ্যের মধ্যে রয়েছে মোবাইল ফোন, স্মার্টফোন, ল্যাপটপ, ট্যাবলেট, চিপস এবং মাইক্রোচিপস।

আঙ্কটাডের একজন তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক বিশ্লেষক, তোবিয়ান ফ্রেডরিকসন বলছেন এশিয়ার উন্নয়নশীল দেশগুলো এসব পণ্যের আমদানী ও রপ্তানিতে এগিয়ে আছে এবং তাদের শীর্ষে রয়েছে চীন।

মি ফ্রেডরিকসন বলেন যে আমরা যদি বৃহত্তম রপ্তানীকারকদের দিকে তাকাই তাহলে স্পষ্টতই সেখানে চীন রয়েছে সবার ওপরে। ২০১২ সালে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির পণ্যের রপ্তানীর ত্রিশ শতাংশই এককভাবে ছিলো চীনের। এরপর হংকং, সিঙ্গাপুর, তাইওয়ান, কোরিয়া প্রজাতন্ত্রের মতো র্পূব এশিয়ার অন্যান্য দেশগুলো।

 

Loading the player ...

সংযোগ বজায় রাখুন