১৬:২৬:০৫

ভূমি ব্যবহারের অসহনীয় হার খাদ্য নিরাপত্তার জন্য হুমকি: ইউএনইপি

শুনুন /

অসহনীয় হারে ভূমি ব্যবহারের যে প্রবণতা বর্তমানে চালু রয়েছে তা যদি অব্যাহত থাকে তাহলে ২০৫০ সাল নাগাদ শত কোটি হেক্টর প্রাকৃতিক জমির গুণগত মান ক্ষতিগ্রস্ত হবে, যার আয়তন প্রায় ব্রাজিলের সমান।

সুইৎজারল্যান্ডের ডাভোসে অনুষ্ঠিত ওর্য়াল্ড ইকোনমিক ফোরামে প্রকাশিত জাতিসংঘের পরিবেশ কর্মসূচি, ইউনাইটেড নেশন্স এনভায়রনমেন্ট প্রোগ্রাম, (ইউ এন ই পি)'র এক রির্পোটে একথা বলা হয়।

সংস্থা বলছে যে বিশ্বজুড়ে ক্রমবর্ধমান জনগোষ্ঠীর খাদ্যের চাহিদা মেটাতে বিশ্বের বনাঞ্চল, তৃণভূমি এবং উষ্ণমন্ডলীয় বৃক্ষহীন তৃণভূমি অধিকহারে কৃষিজমিতে রুপান্তরিত হচ্ছে।

ডাভোসে ফোরামে অংশগ্রহণকারী ইউএনইপি'র নির্বাহী পরিচালক, আকিম ষ্টেইনার বলেছেন যে সম্পদের ওপর চাপ ক্রমশই বাড়ছে।

মি ষ্টেইনার বলেন যে উদাহরণ হিসাবে আমরা কৃষিক্ষেত্রের কথা বলতে পারি, যেখানে ভূমির ওপর চাপ ক্রমশ বাড়তে থাকায় এমন একটা অবস্থায় আমরা পৌঁছেছি যেখানে সম্প্রসারণশীল চাষাবাদের এলাকা থেকে যে পরিমাণে ফল পাওয়া যাচ্ছে তা ওই জমি হারানোর ক্ষতিপূরণে যথেষ্ট হচ্ছে না।

মি ষ্টেইনার বলেন যে আমরা জমির উর্বরাশক্তি ধ্বংস করছি এবং পানিসম্পদের ওপরও চাপ সৃষ্টি করছি।

মি ষ্টেইনার বলেন যে একদিকে, এই রির্পোট প্রকাশের মাধ্যমে আমরা আমাদের ধরণীতে কি ঘটছে সেটি যেমন তুলে ধরেছি তেমনি আমাদের অর্থনীতিগুলোকে নতুন করে সাজানোর প্রয়োজনীয়তা এবং প্রচেষ্টার দিকে নজর দিয়েছি।

'এসেসিং গ্লোবাল ল্যান্ড ইউজ: ব্যালান্সিং কনজাম্পশন উইথ সাসটেইনেবল সাপ্লাই' অর্থাৎ, বৈশ্বিক ভূমি ব্যবহার পর্যালোচনা : ভোগ এবং টেকসই সরবরাহ ব্যবস্থায় ভারসাম্য প্রতিষ্ঠা র্শীষক ইউএনইপি'র এই রির্পোটটি তৈরি করেছেন একটি আন্তর্জাতিক প্যানেল যাতে আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সাতাশজন বিজ্ঞানী, তেত্রিশটি জাতীয় সরকার এবং ইউএনইপির পৃষ্ঠপোষকতাপ্রাপ্ত গোষ্ঠীর প্রতিনিধিরা অংশ নিয়েছেন।

Loading the player ...

সংযোগ বজায় রাখুন