১৪:৪৭:৩৩

মিশরে সাংবাদিকদের হয়রানি অগ্রহণযোগ্য: জাতিসংঘ

শুনুন /

মিশরে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসে জড়িত থাকার অভিযোগ আনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ।

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার, নাভি পিল্লাই বলেন যে এই অভিযোগ দেশটিতে মতপ্রকাশের স্বাধীনতার প্রতিফলন ঘটে যে গণমাধ্যমে তাকে হয়রানি এবং ভীতিপ্রদর্শনের শামিল।

তিনি আন্তর্জাতিক সম্প্রচার প্রতিষ্ঠান আলজাজিরার চারজন বিদেশী এবং ষোলোজন স্থানীয় সাংবাদিকের বিরুদ্ধে আনীত সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে সহায়তা এবং জাতীয় র্স্বাথকে ক্ষতিগ্রস্ত করার অভিযোগকে অস্পষ্ট বলে অভিহিত করেন।

জাতিসংঘ মানবাধিকার দপ্তরের মুখপাত্র রুর্পাট কলভিল বলেন যে এসব মানুষ বন্দুক নয়, ক্যামেরা বহন করছিলেন।ক্যামেরার লক্ষ্য হচ্ছে যা ঘটছে তা তুলে ধরা, তথ্য লুকানো নয়।

মি কলভিল বলেন যে এটি বিস্ময়কর যে সন্ত্রাসবাদীরা যেধরণের সংলাপ ব্যাবহার করে, সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসকে সমর্থনের সেই একইধরণের অভিযোগ আনা হয়েছে।

মি কলভিল বলেন যে এটি খুবই আতঙ্কজনক পদক্ষেপ এবং আমরা আশা করি যে অতি দ্রুত অবস্থা বদলাবে।

মি কলভিল বলেন যে আমরা সাংবাদিকদের ভীতিপ্রদর্শনের এমন অনেক খবর পেয়েছি যাতে তাদের সরঞ্জাম কেড়ে নেওয়া হয়েছে এবং স্থানীয় সাংবাদিকদের অনেককে স্পর্শকাতর বিষয়ে খবর প্রকাশের জন্য চাকরীচ্যূত করা হয়েছে।

মি কলভিল বলেন যে এমন খবরও পাওয়া গেছে আটককৃত সাংবাদিকদের প্রতি দূর্ব্যবহার করা হচ্ছে এবং এমন অবস্থায় বন্দী রাখা হচ্ছে যা মানবাধিকারের আন্তর্জাতিক মানের সাথে সঙ্গতির্পূণ নয়।

মি কলভিল বলেন যে মৌলিক মানবাধিকার চর্চার অংশ হিসাবে বৈধভাবে সংবাদ পরিবেশনের জন্য আটককৃত সব সাংবাদিককে অবিলম্বে মুক্তি দেওয়ার জন্য আমরা মিশরীয় কত্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। সাংবাদিকরা যাতে মিশরের বর্তমান পরিস্থিতি এবং এসম্পর্কিত বিষয়গুলো নিয়ে বিভিন্নরকমের মতামত খবরে তুলে ধরতে পারেন এবং মতপ্রকাশের স্বাধীনতাকে নিশ্চিত করার দায়িত্ব হচ্ছে রাষ্ট্রের।

জাতিসংঘের মানবাধিকার দপ্তর বলছে যে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে সহিংসতার সব অভিযোগ অবশ্যই নিরপেক্ষ ও স্বচ্ছভাবে তদন্ত হতে হবে।

Loading the player ...

সংযোগ বজায় রাখুন