১৩:৩২:১২

সংঘাত বন্ধে দায়িত্বশীল আচরণের জন্য বিশ্বনেতাদের প্রতি আহ্বান

শুনুন /

বিশ্বব্যাপী সংঘাত বন্ধের জন্য দায়িত্বশীল আচরণ করা এবং বৈশ্বিক সমস্যাগুলো সমাধানে ভূমিকা রাখার জন্য বিশ্বনেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন।

শুক্রবার জাতিসংঘ যেসব চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি সেবিষয়ে সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে বক্তৃতা করার সময় মি বান সিরিয়া এবং দক্ষিণ সুদানসহ চলমান বিভিন্ন সংঘাতের বিষয়ে বিভিন্ন ইস্যু তুলে ধরেন।

মি বান সদস্য দেশগুলোকে স্মরণ করিয়ে দেন যে এবছর হচ্ছে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের শততম বার্ষিকী।

তিনি বলেন যে অবিবেচনাপ্রসূত রাজনৈতিক সংঘাতের প্রতি বৈশ্বিক প্রতিক্রিয়া থেকেই লিগ অব নেশনস প্রতিষ্ঠিত হয় যার চূড়ান্ত রুপ হচ্ছে জাতিসংঘ।

মি বান বলেন যে মানবিক ব্যর্থতার উর্ধ্বে উঠে আসার জন্য জাতিসংঘ হচ্ছে একটি অনন্য প্লাটফর্মের মতো যা বিজ্ঞ এবং দূরদৃষ্টিসম্পন্ন নেতৃত্বকে উৎসাহ যোগায় এবং যা পরিবর্তিত নতুন বৈশ্বিক বাস্তবতার দরুণ সৃষ্ট সুযোগকে কাজে লাগাতে উদ্বুদ্ধ করে। তবে, প্রভাবশালী এবং দায়িত্বশীলদের মধ্যে অনেক বেশিসংখ্যক ব্যাক্তিকে অনৈতিক ও দায়িত্বহীন ভূমিকা নিতে দেখে আমি গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।

মি বান বলেন যে আমি আজ যেসব সংঘাতের কথা বলেছি সেগুলো এমন সব দেশকে ধ্বংস করছে যেগুলো প্রাকৃতিক সম্পদ, উৎপাদনশীল নাগরিক, গর্বিত ইতিহাসের অধিকারী এবং যাদের শান্তি ও সমৃদ্ধির সব সম্ভাবনাই রয়েছে।

মি বান বলেন যে এসব দেশের নেতাদেরকে তাঁদের জনগণ এবং আমাদের বিশ্বের স্বার্থে দেশগুলোর সম্ভাবনাকে বিকশিত করতে তাদের ঐতিহাসিক দায়িত্ব পালনে এখনই ভূমিকা নিতে হবে।

দক্ষিণ সুদানের পরিস্থিতি ভয়াবহ: জাতিসংঘ

জাতিসংঘের একজন জৈষ্ঠ্য মানবাধিকার কর্তা বলেছেন যে দক্ষিন সুদান একটি ভীতিকর মানবিক এবং মানবাধিকার দূর্যোগের রুপ নিয়েছে।

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক সহকারী মহাসচিব, ইভান সিমোনোভিচ দেশটিতে পাঁচদিনের এক সফরশেষে শুক্রবার একথা বলেন।

তিনি বলেন যে উভয়পক্ষ থেকে গণহারে নিষ্ঠুরতার ঘটনা ঘটেছে এবং হাজার হাজার মানুষ নিহত হয়েছেন এবং লাখ লাখ মানুষ গৃহহারা হয়েছেন।

মি সিমোনোভিচ বলেন যে দক্ষিণ সুদানের ইউনিটি রাজ্যের রাজধানী বেন্টিউতে তিনি আতঙ্কজনক চিত্র দেখেছেন।

চল্লিশ হাজার অধিবাসীর শহরটি একটি ভুতুড়ে শহরে পরিণত হয়  যেখানে একজনও বেসামরিক লোককে তিনি দেখতে পাননি বলে জানান।

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক ওই কর্তা বলছেন যে এসব ঘটনার জবাবদিহিতা প্রয়োজন এবং সেকারণে তিনি যতো দ্রুত সম্ভব নিরপেক্ষ এবং স্বাধীন তথ্যানুসন্ধানী কমিশন গঠনের আহ্বান জানান।

জাতিসংঘ-সমর্থিত আদালতে হারিরি হত্যার বিচার শুরু

লেবাননের সাবেক প্রধানমন্ত্রী রফিক হারিরিকে হত্যার অভিযোগে সন্দেহভাজন চারজনের বিচার বৃহস্পতিবার দ্য হেগে জাতিসংঘ-সমর্থিত আদালতে শুরু হয়েছে।

২০০৫ সালের ১৪ই ফেব্রুয়ারি কেন্দ্রীয় বৈরুতে তাঁর মোটরবহবে এক বড়ধরণের গাড়িবোমায় রফিক হারিরি এবং অন্য বাইশজন নিহত হন।

লেবানন বিষযক বিশেষ আদালত এসব অভিযুক্তদেরকে তাঁদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ জানানো এবং তাঁদেরকে আদালতে হাজির করানোর জন্য যৌক্তিক সব পদক্ষেপ নেওয়ার পর তাঁদের অনুপস্থিতিতেই এই বিচারকাজ শুরু করছে।

তাঁদের সবার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী কার্য্যক্রম পরিচালনার ষড়যন্ত্রের অভিযোগ আনা হয়েছে।

লেবানন সরকারের অনুরোধে এবং জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ম্যান্ডেটে এই স্বাধীন আদালত প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

উপেক্ষিত মানবিক সংকট মোকাবেলায় নতুন বরাদ্দ

বিশ্বের সবচেয়ে খারাপ, কিন্তু অদ্যাবধি উপেক্ষিত, মানবিক সংকটগুলোয় সহায়তা দেওয়ার জন্য জাতিসংঘের মানবিক কার্য্যক্রমের প্রধান, ভ্যালেরি অ্যামোস আট কোটি ষাট লাখ ডলার বরাদ্দ করেছেন।

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ প্রতিষ্ঠিত কেন্দ্রীয় জরুরি তৎপরতা তহবিল বা সেন্ট্রাল ইমারজেন্সি রেসপন্স ফান্ড ( সিইআরএফ) থেকে দশটি দেশের জন্য আরো দ্রুততার সাথে এবং ন্যায়পরায়ণভাবে কাজ করার জন্য এই তহবিল বরাদ্দ করা হয়।

জাতিসংঘের উপ-মুখপাত্র, ফারহান হক এবিষয়ে জানান যে সেন্ট্রাল ইমারজেন্সি রেসপন্স ফান্ড ( সিইআরএফ) থেকে বরাদ্দ করা এই তহবিল ক্যাম্বোডিয়া, মায়ানমার, সুদান এবং ইয়েমেনসহ দশটি দেশে যেখানে প্রয়োজনীয়তা বেশি হওয়া সত্ত্বেও সহায়তার পরিমাণ কম, সেসব দেশে জরুরি জীবনরক্ষাকারী ত্রাণকাজ পরিচালনা নিশ্চিত করবে।

মি হক জানান যে মিস অ্যামোন বলেছেন যে কিছু গুরুত্বর্পূণ মানবিক সংকটের শিকার লোকজন সবসময়ে তাঁদের চাহিদার প্রতি সবার দৃষ্টি আকর্ষণে সক্ষম হননা।

তিনি বলেন যে এসব নতুন বরাদ্দ সেইসব লাখ লাখ সংকটগ্রস্ত মানুষকে সাহায্য করবে যাদের কথা অন্যান্য জরুরি পরিস্থিতির কারণে সবাই ভুলে গেছে।

'জলবায়ূ পরিবর্তনের মোকাবেলায় একটি নীতিমালা অপরির্হায্য'

জলবায়ূ পরিবর্তনের বিষয়টি মোকাবেলার জন্য জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পর্য্যায়ে একটি নীতি থাকা 'অপরির্হায্য' বলে বর্ণনা করা হয়েছে।

জলবায়ূ পরিবর্তনের বিষয়ে জাতিসংঘের প্রতিষ্ঠান ইউ এন ফ্রেমওর্য়াক কনভেনশন অন ক্লাইমেট চেঞ্জ ( ইউ এন এফ সি সি)'র নির্বাহী সচিব ক্রিষ্টিনা ফিগারেস একথা বলেছেন।

জলবায়ূ পরিবর্তনের সংকট মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় জলবায়ূ বিষয়ক বিভিন্ন জরুরি পরিস্থিতি এবং বিনিয়োগ সম্পর্কে আলোচনার জন্য নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে অনুষ্ঠিত এক সম্মেলনে উপস্থিত বৈশ্বিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের প্রায় পাঁচশতাধিক প্রতিনিধির উদ্দেশ্যে বক্তৃতায় মিস ফিগারেস একথা বলেন।

কৃষির আধুনিকায়ন টেকসই হওয়া প্রয়োজন : এফ এ ও

ভবিষ্যতের কৃষি যন্ত্রপাতিকে পরিবেশগতভাবে টেকসই কৃষিকাজে ভূমিকা রাখতে সক্ষম হতে হবে বলে বলছে জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি বিষযক সংস্থা এফ এ ও।

এফ এ ও'র পল্লী উন্নয়নের যান্ত্রিকীকরণ, বিশ্বব্যাপী অগ্রযাত্রা ও প্রবণতা পর্যালোচনা বিষয়ক প্রকাশনায় কৃষিক্ষেত্রে কৃষকদের ক্রমবর্ধমান হারে যন্ত্রপাতি ব্যাবহারের বিষয়টি অনুসন্ধান করা হয়েছে।

বইটির প্রধান সম্পাদক, এফ এ ও'র একজন কৃষি প্রকৌশলী, জোসেফ কিয়েনজেল বলছেন যে কৃষি যন্ত্রপাতির নকশা প্রণযনকারীদের যে বিষয়টি বিবেচনায় নেওয়া প্রয়োজন তাহোল বিশ্বে কৃষিকাজে নিয়োজিত লোকজনের আশি শতাংশই ক্ষুদ্রচাষী অথবা পারিবারিকভাবে চাষাবাদ করে থাকেন।

Loading the player ...

সংযোগ বজায় রাখুন