২৩:৪৩:১৯

শান্তিরক্ষায় পুলিশে আরো বেশি নারী প্রতিনিধিত্ব প্রয়োজন

শুনুন /

জাতিসংঘ বলছে যে তার শান্তিরক্ষা কার্য্যক্রমে আরো বেশি সংখ্যায় নারী পুলিশ অফিসার প্রয়োজন।

জাতিসংঘের পুলিশ বিষয়ক উপদেষ্টা, ষ্টেফান ফেলার এবছরের মে মাসে দায়িত্বগ্রহণের পর তাঁর প্রথম সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন।

মি ফেলার বলেন যে জাতিসংঘের পুলিশ বিভাগেএর অন্যতম একটি প্রধান মনোযোগের বিষয় হচ্ছে নারী-পুরুষের ভারসাম্য ও সমঅধিকার। তাঁর র্পূবসুরী এবিষয়ে 'গ্লোবাল এর্ফাট' বা বৈশ্বিক উদ্যোগ নামে একটি প্রচারাভিযান শুরু করেন।

মি ফেলার বলেন যে আমাদের নীল হেলমেটধারীদের মধ্যে নারী পুলিশ অফিসারের সংখ্যা আরো বাড়াতে হবে এবং 'গ্লোবাল এর্ফাট' জাতিসংঘ এবং স্বাগতিক দেশ – উভয়ক্ষেত্রেই পুলিশবাহিনীতে নারীর সমপরিমাণ প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করার লক্ষ্যে আমাদের আন্তরিক উদ্যোগের প্রতিফলন।

মি ফেলার বলেন যে আমরা এক্ষেত্রে কিছুটা সফল হয়েছি, তবে আমাদেরকে এখনও অনেককিছু করতে হবে। উদাহরণ হিসাবে আমরা যেমন বলতে পারি যে সাইপ্রাসে আমাদের মিশন – ইউএসএফআইসিওয়াইপি'র পুলিশ বিভাগে বর্তমানে বাইশ শতাংশ নারী সদস্য রয়েছেন। সুদানে ইউএনএমআইএসএস মিশনে এই পরিমাণ উনিশ শতাংশ এবং লাইবেরিয়ায় ইউ এন এম আই এল এ তেরো শতাংশ।

ষ্টিফেন ফেলার বলেন যে আরেকটি দৃষ্টান্ত হচ্ছে রোয়ান্ডা – যারা জাতিসংঘ পুলিশবাহিনীতে অংশগ্রহণকারীদের র্শীষ দশটি দেশের অন্যতম –তাদের যে তিনশো আশিজন বিশ্বব্যাপী মোতায়েন রয়েছে তার মধ্যে একশো ষাটজনই মহিলা।

অগাষ্ট ২০০৯ এ সূচিত 'গ্লোবাল এর্ফাট' এর লক্ষ্য ছিলো বিশ্বব্যাপী জাতীয় পুলিশবাহিনীগুলো এবং জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা কার্য্যক্রমে নারী পুলিশ অফিসারদের অংশগ্রহণ বাড়ানো।

২০১৪ সাল নাগাদ বিশ্বে পুলিশবাহিনীগুলোতে নারীদের প্রতিনিধিত্ব অন্তত কুড়ি শতাংশে উন্নীত করাই হচ্ছে জাতিসংঘের লক্ষ্য।

Loading the player ...

সংযোগ বজায় রাখুন