১৭:১৭:২১

অভিবাসন উন্নত ভবিষ্যতের মানবিক আকাঙ্খার প্রতিফলন : বান

শুনুন /

আন্তর্জাতিক অভিবাসন এবং উন্নয়ন বিষয়ে উচ্চ-পর্য্যায়ের এক সংলাপে জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন বলেছেন যে সব অভিবাসীর মানবাধিকার রক্ষায় আমাদেরকে আরও তৎপর হতে হবে।

অভিবাসী, তাদের মূলভূমি এবং গন্তব্যের সমাজগুলোর সবজায়গায় অভিবাসন যাতে কাজে আসে সেজন্যে মহাসচিব এক উচ্চাকাঙ্খী আটদফা কর্মসূচি তুলে ধরেন।

এসব পরামর্শের মধ্যে রয়েছে অভিবাসনের ব্যয় কমানো, মানবপাচারসহ অভিবাসীরা যেসব ঝুঁকির মুখে সেগুলোর ইতি ঘটানো, সাধারণ অভিবাসীদের ভোগান্তি কমানো, অভিবাসীদের বিষয়ে জনমনে ধারণা উন্নত করা, উন্নয়ন পরিকল্পনায় অভিবাসনকে সম্পৃক্ত করা, অভিবাসনের সুফলের স্বাক্ষ্যভিত্তিকে জোরদার করা এবং অভিবাসন বিষয়ে সহযোগিতা এবং অংশীদারিত্ব জোরদার করা।

মি বান বলেন যে প্রায়শই অভিববাসীদেরকে ভীতির মধ্যে জীবন কাটাতে হয় – তথাকথিত আলাদা গোষ্ঠী হিসাবে হয়রানির শিকার হয়ে, ন্যয়বিচার পাওয়ার ক্ষেত্রে প্রায় সুযোগবঞ্চিত থেকে কিম্বা অসাধু নিয়োগকর্তাদের কাছে পাসর্পোট বা মজুরি আটকা থাকায় তাদের এই ভোগান্তি।

মি বান বলেন যে আমরা আর নিশ্চুপ থাকতে পারি না। কাজের পরিবেশ এবং মজুরিসহ সবধরণের বৈষম্য আমাদেরকে দূর করতে হবে।

মি বান বলেন যে নিরাপদ এবং নিয়মমাফিক অভিবাসনের জন্য আমাদের আরো বিভিন্ন পথ খোলা দরকার এবং অভিবাসীদের প্রশাসনিক আটকাদেশের বিকল্প কোন পথ অনুসন্ধান করা প্রয়োজন।

মহাসচিব বলেন যে অভিবাসনে মর্য্যাদা, নিরাপত্তা এবং উন্নত ভবিষ্যতের মানবিক আকাঙ্খার প্রতিফলন ঘটে এবং এটা সামাজিক বন্ধনেরই অংশ।

এদিকে, অভিবাসীদের সুরক্ষা বিষয়ে জাতিসংঘের একজন স্বাধীন বিশেষজ্ঞ, ফ্রাঁসোয়া ক্রিপো বলেছেন যে অভিবাসীরাও মানূষ এবং তাদেরও  মানবাধিকার আছে।

মি ক্রেপো বলেন যে আন্তর্জাতিক অভিবাসনের সব আলোচনায় মানবাধিকার একটি মৌলিক বিষয়। তিনি বলেন যে তাদের সুরক্ষায় আইনগত কাঠামো বহাল থাকা সত্ত্বেও অভিবাসীরা নির্যাতন, সহিংসতা, শোষণ এবং বিদেশীদের বিষয়ে অহেতুক ভীতির শিকার হচ্ছেন।

মি ক্রেপো বলেন যে অভিবাসন এবং উন্নয়ন বিষয়ক এই সংলাপ যখন চলছে তখন আমাকে এই কথাটি বলতে দিন যে অভিবাসীরা শুধুমাত্র অর্থনৈতিক উন্নয়ন এবং অর্থনৈতিক উৎপাদনের অনুঘটক নয়, তারা একইসাথে মানবাধিকারসম্পন্ন মানুষ।

মি ক্রেপো বলেন যে সেকারণেই জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদের বিশেষ বিধিমালায় যে দলিল প্রকাশ করা হয়েছে তার আলোকে অভিবাসন বিষয়ক সব আলোচনার কেন্দ্রে  রয়েছে মানবাধিকার।

মি ক্রেপো অভিবাসীদের অধিকার নির্দিষ্ট করা দলিলসহ আন্তর্জাতিক মানবাধিকারের সব সনদসমূহ অনুমোদন এবং বাস্তবায়নের জন্য সব দেশের প্রতি আহ্বান জানান।

তিনি এক্ষেত্রে সব অভিবাসী এবং তাদের পরিবারের অধিকার সুরক্ষার আন্তর্জাতিক সনদ এবং গৃহকর্মীদের শোভনীয় কাজ বিষয়ক সনদের দৃষ্টান্ত উল্লেখ করেন।

Loading the player ...

সংযোগ বজায় রাখুন