১৭:০০:৫৩

সিরিয়ায় রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের অভিযোগ দ্রুত তদন্তের তাগিদ

শুনুন /

সিরিয়ায় রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের অভিযোগ যতো দ্রুত সম্ভব তদন্তের তাগিদ দিয়েছে জাতিসংঘ। বুধবার নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকের পর সাংবাদিকদের একথা জানিয়েছেন উপ-মহাসচিব ইয়ান এলিয়াসেন।

তিনি বলেন তদন্তের ফল যাই আসুক না কেন , এটা একটা গুরুতর পর্য্যায়ে উন্নীত হয়েছে এবং তার মারাত্মক মানবিক পরিণতির আশংকা দেখা দিয়েছে।

অভিযোগ তদন্তকারী দল এখন সিরিয়ায় আছে উল্লেখ করে তিনি আশা প্রকাশ কনে যে দামেস্কের সরকার তদন্তকারীদের সেখানে যেতে দেবেন।

মি এলিয়াসেন বলেন যে এটা একটা নাটকীয় পরিস্থিতি। এবং নিরাপত্তা পরিস্থিতির কারণে সেখানে যাওয়ার উপায় নেই। এবং সেকারণেই এটাকে একটা বৃহত্তর এবং উদার পটভূমিতে দেখতে হবে – অর্থাৎ সংঘাত বন্ধ করা এখন এখন বড় প্রয়োজন ।

মি এলিয়াসেন বলেন যে ওই এলাকায় সংঘাত বন্ধ হওয়া যেমন প্রয়োজন, তেমনি সাধারণভাবে যুদ্ধ বন্ধ হওয়াও প্রয়োজন।

অষ্ট্রেলিয়ায় ৪৬ শরণার্থীকে আটক রাখা অমানবিক : জাতিসংঘ

জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিটি অষ্ট্রেলিয়ার একটি শিবিরে ৪৬ জন স্বীকৃত শরণার্থীকে নিরাপত্তার কারণে আটক রাখার বিষয়টিকে নিষ্ঠুর, অমানবিক এবং অবমাননাকর অভিহিত করে বলেছে যে এর ফলে মানসিকভাবে তাদের গুরুতর ক্ষতি সাধিত হয়েছে।

জেনেভা ভিত্তিক এই কমিটি বলেছে যে গত আড়াই বছর ধরে আটক রাখা এসব শরণার্থীকে ক্ষতিপূরণ দিয়ে পুনর্বাসন করা উচিৎ।

৪২ জন শ্রীলংকার তামিল, তিনজন মিয়ানমারের রোহিঙ্গা এবং একজন কুয়েতী অষ্ট্রেলিয়ার আদালতে তাঁদের আটকাদেশ চ্যালেঞ্জ করার সুযোগ না থাকার কথা জানিযে জাতিসংঘের এই কমিটির কাছে অভিযোগ করেন।

তাঁদেরকে শরণার্থী হিসাবে স্বীকৃতি দেওয়া হলেও নিরাপত্তা ঝুঁকির কারণ দেখিয়ে অষ্ট্রেলিয়া ভিসাদানে অস্বীকৃতি জানায় এবং অভিবাসনকামীদের শিবিরে আটক রাখে।

ধর্মীয় ঘৃণা ও উস্কানি বন্ধের জন্য মিয়ানমারের প্রতি আহ্বান

জাতিসংঘের একজন মানবাধিকার বিষয়ব বিশেষজ্ঞ থমাস ওযিয়া কুইন্টানা বলেছেন যে মিয়ানমার মানবাধিকারের ক্ষেত্রে ইতিবাচক পরিবর্তন আনলেও  বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর মধ্যে প্রকৃত আপোষরফা না হওয়া এবং ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে ঘৃণা ও উস্কানি ছড়ানোর বিষয়টি দেশটির সামনে এখনও বড় সমস্যা হয়ে রয়েছে।

মিয়ানমারে তাঁর অষ্টম দফা সফরের শেষে মি কুইন্টানা রাখাইন রাজ্যে বিভিন্ন সম্প্রদায়কে অব্যাহতভাবে বিচ্ছিন্ন করে রাখার নীতিতে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন যে এটা ক্রমশই স্থাযী রুপ নিচ্ছে এবং মুসলিম সম্প্রদায়ের তার বিরুপ প্রভাব পড়ছে।

পানির কষ্টে আছেন ৭৭ কোটি মানুষ : ইউ এন ডিপি

জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি – ইউ এন ডি পি'র সহযোগী পরিচালক রেবেকা গ্রিনস্প্যান বলেছেন যে বিশ্বব্যাপী অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় থাকা কোটি কোটি মানুষের সংকটের কেন্দ্রে রয়েছে পানির অভাব, যার ফলে তাদের জীবন, পেশা, শান্তি এবং মানবিক নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়ছে।

তাজিকিস্তানের দুশানবেতে পানিবিষয়ক আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সম্পর্কে উচ্চপর্য্যায়ের এক সম্মেলনে তিনি বলেন যে বিশ্বে সাতাত্তর কোটি লোক উন্নত পানির উৎস থেকে এবং আড়াইশো কোটি লোক মৌলিক স্বাস্থ্যসম্মত পয়ঃব্যবস্থা থেকে বঞ্চিত।

তিনি বলেন যে পানির উৎসের চাহিদাই যে শুধু বাড়ছে তা নয়, বরং পানির অপচয় ও পানি দূষণ পানি এবং কৃষির উপযোগী প্রাকৃতিক ভারসাম্যমূলক ব্যবস্থাকে নষ্ট করছে।

জলবায়ূ পরিবর্তনের কারণে পানির প্রাকৃতিক চক্রেও  অসঙ্গতি বাড়ছে এবং বন্যা ও খরার মতো আবহাওয়ার চরম রুপ পানি ব্যবস্থাপনা ও পানি বিষয়ক শাসনকাজে সংকটকে জটিল করে তুলছে।

মিস গ্রিনস্প্যান বলেন যে এই প্রবণতা অব্যাহত থাকলে ২০২৫ সাল নাগাদ বিশ্বে প্রায় তিনশো কোটি লোক এমন অবস্থায় বসবাস করবেন যেখানে পানির ওপর চাপ থাকবে।

মানবিক সেবাকর্মীদের ওপর হামলা যুদ্ধাপরাধ : বান

সোমবার বিশ্ব মানবিক সেবা দিবস উপলক্ষ্যে নিরাপত্তা পরিষদে জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন সাহায্য কর্মীদের ওপর হামলাকে যু্দ্ধাপরাধ অভিহিত করে মানবিক সেবা কর্মীদের উন্নততর সুরক্ষা দেওয়ার আহ্বান পুর্নব্যক্ত করেছেন।

২০১৩ সালের বিশ্ব মানবিক সেবা দিবসটি ছিলো বাগদাদে জাতিসংঘ দপ্তরে বোমাহামলায় বাইশজন কর্মী নিহত হওয়ারও দশম বার্ষিকী।

মি বান বলেন যে এই মর্মান্তিক বার্ষিকীতে আমি সর্বত্র সম্পদ হিসাবে বিবেচ্য সব মানবিক সেবাকর্মীদের অধিকতর  সুরক্ষা ও মর্য্যাদা দেওয়ার জন্য আবারও আহ্বান জানাচ্ছি। মানবতাবাদীদের ওপর হামলা আন্তর্জাতিক আইনের লংঘন।

মি বান বলেন যে এটা যুদ্ধাপরাধ এবং আমরা যাদেরকে সেবা দেই, আমাদেরকে যাঁদের সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন – এটা তাঁদের ওপরও আঘাত।

সমুদ্র পরিবহনে নতুন সনদ কার্য্যকর হোল ২০ অগাষ্ট

আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা – আই এল ও'র সমুদ্রপরিবহন শ্রম সনদ বা মেরিটাইম লেবার কনভেনশন গত বিশে অগাষ্ট থেকে কার্য্যকর হয়েছে।

এরফলে, বৈশ্বিক জাহাজ চলাচল শিল্পে জাহাজমালিকদের মধ্যে যেমন ন্যায়সঙ্গত প্রতিযোগিতা সম্ভব হবে তেমনই নাবিকদের  শোভনীয় কাজের পরিবেশ তৈরি হবে।

আই এল ও মহাপরিচালক গাই রাইডার সমুদ্রের স্বার্থে যেসব দেশ এখনও এই সনদে স্বাক্ষর করেনি তাঁদেরকে তা করার পাশাপাশি সব সরকার ও জাহাজমালিকদেরকে এই সনদ কার্য্যকরভাবে বাস্তবায়নে কাজ করার আহ্বান জানান।

তিনি বলেন যে এই সনদ সমুদ্রপরিবহনের ইতিহাসে একটি মাইলফলক।

Loading the player ...

সংযোগ বজায় রাখুন