১৮:০২:১৫

শিশুখাদ্য বিষয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিধি মানছে মাত্র ২০ শতাংশ দেশ

শুনুন /

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা- ডাব্লু এইচ ও'র এক নতুন রিপোর্টে বলা হয়েছে যে প্রক্রিয়াজাত শিশুখাদ্য বা ইনফ্যান্ট ফর্মূলা বিষয়ে সংস্থার বিধি পুরোপুরি বাস্তবায়নে আইন করার কথা জানিয়েছে মাত্র কুড়ি শতাংশ দেশ।

বুকের দুধের বিকল্প বাজারজাতকরণে আন্তর্জাতিক বিধির উদ্দেশ্য হচ্ছে নবজাতক এবং ছোট শিশুদের পুষ্টি ও স্বাস্থ্যের উন্নয়নে বুকের দুধ খাওয়ানোর প্রসার ঘটানো।

ডাব্লু এইচ ও'র পুষ্টি বিভাগের প্রধান ডঃ কারমেন কাসানোভাস বলছেন যে বুকের দুধ খাওয়ানোরও একটি যথাযথ পদ্ধতি রয়েছে।

ডঃ কাসানোভাস বলছিলেন যে জন্মের প্রথম ঘন্টায় মা এবং শিশুর চামড়ায় চামড়ায় র্স্পশের মাধ্যমে বুকের দুধ খাওয়ানো , জীবনের প্রধম ছয়মাসে শুধুমাত্র বুকের দুধ খাওয়ানো এবং দু'বছর বয়স পর্য্যন্ত বা তারও পরে অন্যান্য উপযুক্ত খাদ্যের পাশাপাশি বুকের দুধ খাওয়ানো অব্যাহত রাখা প্রয়োজন।

বিশ্বের একশো সত্তুরটি দেমে পহেলা থেকে সাতই অগাষ্ট বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ পালনের প্রাক্কালে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এই রির্পোট প্রকাশিত হোল।  

আফগানিস্তানে ২০১৩'র প্রথম ছ'মাসে বেসামরিক প্রাণহানি বেড়েছে

আফগানিস্তানে জাতিসংঘের সহায়তা মিশন – ইউ এন এ এম এ'র এক রির্পোটে বলা হয়েছে যে ২০১৩ সালের প্রথম ছয় মাসে দেশটিতে আফগান বেসামরিক নাগরিকদের প্রাণহানির সংখ্যা অনেক বেড়েছে।

রির্পোটে বলা হয় যে এসময়ে দেশটিতে চার হাজারেরও বেশী বেসামরিক নাগরিক হতাহত হয়েছেন যা ২০১২ সালের একই সময়ের তুলনায় অনেক বেশী।

এতে বলা হয় যে এর কারণ হচ্ছে বেসামরিক লোকজন যেসব এলাকায় সচরাচর যাতায়াত করে সেসব স্থান অথবা জনবহুল এলাকাগুলোকে সরকারবিরোধীরা  তাদের আক্রমণের লক্ষ্যস্থল হিসাবে নির্ধারণ করেছে এবং অধিকাংশ ক্ষেত্রেই তারা পেতে রাখা বিস্ফোরক দ্রব্য আই ই ডি ব্যবহার করেছে।

শিশুদের বিরুদ্ধে সহিংসতা বন্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান

জাতিসংঘের শিশু তহবিল – ইউনিসেফ শিশুদের বিরুদ্ধে সহিংসতার বিষয়ে সরকার, আইনপ্রণেতা এবং নাগরিকেরা যাতে আরো সোচ্চার হন সেজন্যে বুধবার এক নতুন উদ্যোগ চালু করেছে।

ভারত এবং দক্ষিণ আফ্রিকায় কিশোরী ধর্ষণের মতো সাম্প্রতিক সহিংসতা এবং যুক্তরাষ্ট্রে গতবছরে গুলিবর্ষণে ছাব্বিশজন ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষকের মৃত্যুর পটভূমিতে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়।

ইউনিসেফ এর শুভেচ্ছা দূত অভিনেতা লিয়াম নীসন বলেন আসুন অদৃশ্য বিষয়গুলোকে দৃশ্যমান করি। ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক অ্যান্থনি লেক বলেন যেখানেই হোক যখনই কোন শিশুর ক্ষতি করা হবে তখনই আমাদের ক্ষোভ এবং ক্রোধ সবাইকে শোনাতে এবং দেখাতে হবে।

প্রতি চার সেকেন্ডে একজন হয় শরণার্থী নয়তো বাস্তুচ্যূত হচ্ছেন

বিশ্বে প্রতি চার সেকেন্ডে একজন হয় শরণার্থী হচ্ছেন নয়তো অভ্যন্তরীণক্ষেত্রে বাস্তুচ্যূত হচ্ছেন বলে জানিয়েছে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা – ইউ এন এইচ সি আর।

অব্যাহতভাবে মানুষ দেশান্তরি হচ্ছেন। হাজার হাজার মালিয়ান যাচ্ছেন নিজার, মৌরিতানিয়া অথবা বুরকিনা ফাসোতে , হাজার হাজার সুদানী যাচ্ছেন দক্ষিণ সুদানে এবং এখন পনেরো লাখেরও বেশী সিরীয় প্রতিবেশী দেশগুলোতে আশ্রয় নিয়েছেন। সোমালিয়া ইরাক এবং সিরিয়ায় আরো দশ লাখেরও বেশী লোক অভ্যন্তরীণভাবে বাস্তুচ্যূত হয়েছেন।

ইউ এন এইচ সি আরের প্রধান অ্যান্টোনিও গুটারেস বলছেন যে সিরীয় সংঘাতের কারণে চলতিবছরের শেষ নাগাদ আরো বড়সংখ্যায় মানুষ বাস্তুচ্যূত হবেন অথবা তাঁদের মানবিক সাহায্য প্রয়োজন হবে।

মি গুটারেস বলেন যে প্রতি চার দশমিক এক সেকেন্ডে একজন করে নতুন শরণার্থী বা অভ্যন্তরীণভাবে বাস্তুচ্যূত হচ্ছেন – যার মানে হচ্ছে আপনি যতোবার চোখের পলক ফেলছেন ততোবারই একজন পালাতে বাধ্য হচ্ছেন।

মিয়ানমারে নতুন করে গ্রেপ্তার বন্ধের আহ্বান

জাতিসংঘের একজন স্বাধীন বিশেষজ্ঞ মিয়ানমারে চেতনার বন্দীদের মুক্তিদানকে স্বাগত জানালেও দেশটিতে বর্তমানে যে গ্রেপ্তার অভিযান চলছে তাতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

মিয়ানমারের মানবাধিকার পরিস্থিতির বিষয়ে স্পেশাল র‌্যাপোর্টিয়ার থমাস ওযিয়া কুইন্টানা বলেন যে 'মিয়ানমারের সংস্কারের সবচেয়ে নির্দিষ্ট ফল হচ্ছে চেতনার বন্দীদের মুক্তিলাভ। তবে, এখনও যেসব গ্রেপ্তার এবং সাজা দেওয়ার ঘটনা ঘটছে তাতে আমি উদ্বিগ্ন।'

মি ওযিয়া কুইন্টানা বলেন যে বর্তমান নীতির সাথে ভিন্নমত পোষণ এবং রাজনৈতিক কারণে নাগরিকদের গ্রেপ্তার অবিলম্বে বন্ধ করা উচিৎ।

ভারতে শিশুদের স্কুলে ধরে রাখতে আই এল ও'র প্রকল্প

আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা, আই এল ও ভারতে জাতীয়, প্রাদেশিক এবং জেলাপর্যায়ের কতৃপক্ষের সহায়তায় এমন একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে যাতে শিশুদের শ্রমবাজারে প্রবেশের বদলে স্কুলে ধরে রাখা সম্ভব হয়।

কনভারজেন্স প্রজেক্ট নামের এই পরীক্ষামূলক প্রকল্প দেশটির পাঁচটি রাজ্যের গ্রাম এবং শহরাঞ্চলে বাস্তবায়িত হচ্ছে। প্রকল্পের অন্যতম একটি 'সদাচার' হচ্ছে কিশোর-কিশোরীদের বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণের সুবিধা সম্প্রসারণ।

স্কুল থেকে ঝরে পড়ার ঝুঁকির মধ্যে থাকা কিশোর-কিশোরীরা এই প্রকল্প থেকে বিশেষভাবে উপকৃত হচ্ছে বলে প্রমাণিত হয়েছে। এই প্রকল্পের কারণে অভিভাবকরাও তাঁদের সন্তানদের স্কুলে পাঠাতে আগ্রহী হচ্ছেন ।

Loading the player ...

সংযোগ বজায় রাখুন